September 23, 2021
ত্বক এবং চুল

নিস্তেজ ত্বক এবং চুল ক্ষতি রোধ করতে কী করবেন?

নিস্তেজ ত্বক এবং চুল ক্ষতি রোধ করতে কী করবেন?

হ্যালো বন্ধুরা, আমি আবারো আপনাদের মাঝে এসে গেছি আরও একটি নতুন বিষয় নিয়ে সেটা হল, নিস্তেজ ত্বক এবং চুল ক্ষতি রোধ করতে কী করবেন? আপনারা জানেন যে ত্বক এবং চুল আমাদের দেহের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। যা নানা কারনে এগুলা অনেক ক্ষতির শিকার হয়।
যার ফলে বাহিরে যেতে আমাদের অনেক সমস্যা সৃষ্টি হয়। এমনকি আমরা অনেক সময় মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়ি। যার ফলে ব্যক্তির জীবনে এক দুর্বিহ নেমে আসে। যা আমরা স্বাবাভিক ভাবে নিতে পারি না। আর আমরা এটাও জানি সমস্যা যখন আছে , এর সমাধানও অবশ্যই আছে। তো বন্ধুরা আমরা যখন এই ধরণের সমস্যার শিকার হব তখন তাড়াহুড়ো করে কোন সিদ্ধান্তে যাব না। কারন আপনি হুট্ করে মানুষের কথায় আজেবাজে জিনিস ব্যবহার করলে দেখা যাবে হিতে বিপরীত হতে পারে।

তাই কোন সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে অবশ্যই জেনে শুনে সিদ্ধান্ত নিবেন। তাইলে ভুল হবার সম্ভাবনা কম থাকবে। তো বন্ধুরা চলুন আজ আমরাএই বিষয় গুলো নিয়ে আলোচনা করবো যে কিভাবে নিস্তেজ ত্বক এবং চুল ক্ষতি রোধ করতে কী করবেন?তো বন্ধুরা চলুন দেখা যাক কি কারণে ত্বক এবং চুল ক্ষতি হয়।

ত্বক এবং চুল

ত্বক এবং চুল ক্ষতির কারণ

ত্বকের উজ্জ্বলতা ও চুলের সৌন্দর্য ধরে রাখতে সবসময় স্ট্রেস ফ্রি থাকতে হবে। এবং অধিক যত্নশীল হতে হবে। এখন দেখা যাক কি কি কারণে,ত্বকের উজ্জ্বলতা ও চুলের সৌন্দর্য নষ্ট হয় :
১. আপনি অধিক হারে টেনশন করলে
২. সময় মতো খাওয়া দাওয়া না করলে
৩.পর্যাপ্ত পরিমানে ঘুম না পারলে

দেখা যায় আমরা প্রায় সময়ই উপরের তিন টি কাজ করি না। যার ফলে আমাদের দৈনদৈনিক জীবনে এই ত্বক ও চুলের সমস্যার সৃষ্টি হয়। দেখা যায় ,চুল পড়া বেড়ে গেছে আবার ত্বক এ তৈলাক্ত ভাব দেখা যাচ্ছে। তাই বলা যায়,উক্ত কাজ গুলো আমরা সময় মতো করি না বলে এই সমস্যার সম্মখীন হই আমরা।

তাছাড়াও বর্তমান আমাদের জীবনে সাথে অঙ্গাঙ্গী ভাবে জড়িয়ে আছে স্ট্রেস। এর ফলে সৃষ্ট সমস্যা গুলো হল:

১. গাল চোখ বসে যাওয়া।

২. ত্বক পাতলা হয়ে যাওয়া।

৩. শীতকাল ছাড়াও ত্বকে শুষ্ক ভাব থেকে যাওয়া।

৪. ত্বকে নানা রকম দাগ এর সৃষ্টি হওয়া।

৫. এবং চুল পাতলা হয়ে যাওয়া।

উক্ত সমস্যার মূল কারণ হচ্ছে স্ট্রেস। স্ট্রেস ফ্রি জীবনই আপনার এ সমস্যা সমাধানে একমাত্র পন্থা।

আরও পড়ুনঃ ডায়াবেটিস কি ও কেন হয়?

 

ত্বক এবং চুল

ত্বক এবং চুল ক্ষতির সমাধান

আপনার ত্বক কতটা সৌন্দর্য এ থাকবে সেটা মূলত নির্ভর করে আপনার মনের উপর। কারণ আপনার মন যদি ভালো থাকে, পর্যাপ্ত পরিমানে ঘুম হয় ,প্রয়োজন মতো শশীরচর্চা হয়, পর্যাপ্ত পরিমান পানি পান করা,এবং নিয়মিত ত্বকচর্চা করলে আপনার ত্বকের ক্ষতি হবে না।
তাছাড়া সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠার পর এবং ঘুমাতে যাওয়ার আগে মাইন্ড ফেসওয়াশ দিয়ে ভালোভাবে মুখ ধুয়ে নিবেন। আবার যারা বাহিরে গেলে ত্বকে হালকা তৈলাক্ত ভাব দেখা দেয় তারা ফিরে এসে হালকা ভাবে মুখ ধুয়ে ফ্রিজে রাখা ঠান্ডা গোলাপ জল দিয়ে মুখটা ঘষে নিবেন এবং গোলাপ জল যদি না থাকে তাহলে ফ্রিজের ঠান্ডা পানি দিয়ে ২ মিনিট ত্বক টা ম্যাসাজ করে নিবেন।

এতে ব্রণ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না।
এরপর ত্বকে ভালো একটা ব্রান্ডের ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে দিন। তাছাড়া দিনের বেলা বাহিরে যাওয়ার আগে অব্যশই সান্স ক্রিম লাগাতে ভুলবেন না। এখন বাজারে সুলভ মূল্যে এই ক্রিম পাওয়া যায়। এছাড়াও এটার একটা আলাদা সুবিধা আছে। এই ক্রিম যেকোন বয়সের মানুষ ব্যবহার করতে পারবে।

শিক্ষার্থীরা যদি স্কুলে যাওয়ার আগে এটা লাগায় তাহলে তাদের সূর্যের আলো থেকে সুরক্ষা দেবে। তাছাড়া দিনে যত কাজই করেন না কেন দিন শেষে নিজেকে অবশ্যই একটু বিশ্রাম দিবেন। এর ফলে আপনার ত্বক থাকবে সবসময় সুরক্ষিত ও উজ্জ্বল। তাছাড়াও অবসর সময়ে গান-বাজনা,বই পড়া সহ ভালো লাগার কাজ গুলো করুন। এতে আপনার মন ফ্রেশ থাকবে। ফলে আপনার ত্বক ও চুল সুরক্ষিত থাকবে। সাথে আপনার দেহও।

এছাড়াও চুলের জন্য সপ্তাহে দুই দিন অয়েল ব্যবহার করবেন। বর্তমান বাজারে অয়েলের মধ্যে ভালো অয়েল হচ্ছে অর্গান অয়েল। যা আপনার চুলের রুক্ষতা কমানোর পাশাপাশি চুল পড়াও কমাবে ইনশাআল্লাহ। আর সেই সাথে ভালো শ্যাম্পু বা কন্ডিশনার চুলকে দেবে সফট ও শাইনিং লুক।

পরিশেষে একটা কথা বলতে চাই অন্তত সপ্তাহে একদিন ভালো করে ত্বকচর্চা করুন। নিজের ত্বক চর্চা করতে মাসে একবার স্কিন ফেশিয়াল, ম্যানিকিউর, পেডিকিউর হেয়ার ট্রিটমেন্ট করে নিলে আপনার ত্বক ও চুলের সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। তবে আপনাকে অবশ্যই স্ট্রেস ফ্রি থাকতে হবে। তাহলেই সব সৌন্দর্য থাকবে আপনার হাতের মুঠোয়।

তাই আমার পরামর্শ থাকবে আপনারা উপরের সব গুলো নিয়ম মেনে চলুন ইনশাল্লাহ আপনার ত্বক ও চুল নিয়ে আর ভাবতে হবে না। একটা কথা জোর দিয়ে বলে আপনার সৌন্দর্য নিতান্তই আপনার আর সেই সৌন্দর্য আপনাকেই ধরে রাখতে হবে। আর যদি উপরের নিয়ম মানেন তাইলে আর চিন্তিত হতে হবে না। তো বন্ধুরা আজ এইটুকুই দেখা হবে আবার নতুন একটা বিষয় নিয়ে। সেখানে আমরা এ রকম আরও অনেক বিষয় নিয়ে জানব। আর হ্যা যদি আমাদের এই পোস্ট আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে লাইক ,কমেন্ট এবং শেয়ার করতে ভুলবেন না। আল্লাহ হাফেজ।

তো এই ছিল আজকের পোস্ট যেখানে আমি আলোচনা করেছিন নিস্তেজ ত্বক এবং চুল ক্ষতি রোধ নিয়ে আশা করি আপনাদের বুঝাতে সক্ষম হয়েছি । আশা করি পোস্টটি ভালো লেগেছে কেমন লেগেছে তা অবশ্যই কমেন্ট করে জানতে ভুলবেন না। এই রকম আরও পোস্ট পেতে চাইলে আমাদের সাথেই থাকুন। আমাদের পোস্ট গুলো যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে, অনুগ্রহ করে আমাদের পোস্ট গুলি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করবেন।

>>> ফেসবুক পেইজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন আমাদের সাথে। যুক্ত হতে – এখানে ক্লিক করুন

যদি কোনো ভুল ত্রুটি হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই ক্ষমা সন্দুর দৃষ্টিতে দেখবেন। ধন্যবাদ আপনাকে আর্টিকেলটি পরার জন্য ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন বিদায় নিচ্ছি আজকের মত আল্লাহ্‌ হাফেজ।

Writing By
Shapon Ahmed

Leave a Reply

Your email address will not be published.